প্রধান বিচারপতির পদত্যাগে গণতন্ত্রের অস্তিত্বটুকুও নিশ্চিহ্ন: রিজভী
14 November 2017, Tuesday
কুড়িগ্রাম, ১৪ নভেম্বর (জাস্ট নিউজ) : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে প্রথমে জোর করে চিকিৎসার নামে বিদেশে পাঠিয়েছে সরকার। পরে গুণ্ডামি করে তাকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করে দেশের গণতন্ত্রের ন্যূনতম অস্তিত্বটুকু নিশ্চিহ্ন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে কুড়িগ্রাম শহরের সরদারপাড়ার নিজস্ব বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, সরকার নিজের ইচ্ছা পূরণে ও রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমন করতে আদালতকে ব্যবহার করবে। বিরোধীদের শাস্তি দিতে আদালতকে কসাইখানায় পরিণত করবে।

সরকার গুণ্ডামি করে প্রধান বিচারপতিকে অবসর প্রদানে বাধ্য করেছে  অভিযোগ করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে ক্ষমতার পালাবদল হবে না।

তিনি বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া যথার্থই বলেছেন, শেখ হাসিনার অধীনে কখনোই অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না। শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে, তা হবে ‘হাসিনা মার্কা’ ও ‘ফেনী মার্কা’ নির্বাচন। সেই নির্বাচনে রাত ৩টায় ব্যালট বাক্স ভর্তি হবে এবং বিরোধী দলের প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন না।

রিজভী আরো বলেন, আমরা নির্বাচনে যাব, নির্দলীয় সরকারের অধীনে যে সহায়ক সরকার, তার অধীনেই যাব। আমরা শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাব না। কারণ তারা রক্তাক্ত পরিবেশ তৈরি করবে এবং ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যেতে দেবে না।

তিনি বলেন, এ সরকারের নির্লিপ্ততায় দেশের সংকট আরো বাড়বে। উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলা ধ্বংসের প্রান্তে চলে আসবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা, সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা ও শফিকুল ইসলাম বেবু, যুগ্ম সম্পাদক সোহেল হোসনাইন কায়কোবাদ প্রমুখ।

(জাস্ট নিউজ/ওটি/১৫৩০ঘ.)