আন্তর্জাতিক চাপে ঢাকায় মিয়ানমারের দূত
10 January 2017, Tuesday
ঢাকা, ১০ জানুয়ারি (জাস্ট নিউজ) : মিয়ানমার সেনা বাহিনীর অত্যাচারে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বিষয়ে আলোচনায় লক্ষ্যে দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির বিশেষ দূত ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী উ কিয়াও থিন মঙ্গলবার বিকালে ঢাকায় এসেছেন। তিনি ৩ সদস্যের প্রতিনিধিদল নিয়ে তিন দিন ঢাকায় অবস্থান করবেন। এ সময় রোহিঙ্গা ইস্যুসহ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের বিভিন্ন দিক নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করবেন উ কিয়াও থিন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, সফরকালে বুধবার সকালে অং সান সু চির বিশেষ দূত উ কিয়াও থিন রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুসহ দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে বৈঠক করবেন। বৈঠক শেষে বেলা ২টার পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করবেন মিয়ানমারের বিশেষ দূত। এছাড়া সন্ধ্যায় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন। এ সময়ও রোহিঙ্গা ইস্যুসহ দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে বিষয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হবে।

কূটনৈতিক সূত্রের মতে, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে এই মুহূর্তে মিয়ানমার আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে বাংলাদেশের বিশেষ দূত পাঠিয়েছে। এছাড়া এই সফরের ৩টি সম্ভাব্য কারণ হতে পারে। প্রথমত, ১৯ জানুয়ারি মালয়েশিয়ায় রোহিঙ্গা ইস্যুতে ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক আছে এবং সেখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমূদ আলীরও যাওয়ার কথা রয়েছে। এ কারণেই ওই বৈঠকের আগেই বাংলাদেশের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করতে চায় মিয়ানমার।

দ্বিতীয়ত, মিয়ানমার সরকার আন্তর্জাতিক মহলকে দেখাতে চায়, তারা বাংলাদেশের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করছে। তৃতীয়ত,  মিয়ানমার বুঝাতে চাচ্ছে যে তাদের উদ্দেশ্য ভালো এবং তারা রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান চায়।

(জাস্ট নিউজ/একে/২১২২ঘ.)