Monday October 23, 2017
বহিঃবিশ্ব
12 October 2017, Thursday
প্রিন্ট করুন
তিক্ততা কাটল ফাতাহ ও হামাসের
জাস্ট নিউজ -
ঢাকা, ১২ অক্টোবর (জাস্ট নিউজ) : দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী ফাতাহ ও হামাস এক দশকের বিভক্তি দূর করে একটি পুনর্মিলন চুক্তিতে সাক্ষর করেছে।

মিশরের রাজধানী কায়রোয় উভয় পক্ষের মধ্য আলোচনার পর বৃহস্পতিবার ঐতিহাসিক এই চুক্তিতে সাক্ষর করেন দুই পক্ষের নেতারা।

হামাস প্রধান ইসমাইল হানিয়া একটি বিবৃতিতে বলেন, বৃহস্পতিবার ভোরে ফাতাহ ও হামাস মিশরের মধ্যস্থতায় ঐকমত্যে পৌঁছাতে সক্ষম হয়।' হানিয়া আর কোনো খুঁটিনাটি না দিলেও, কায়রোয় দু'পক্ষের কর্মকর্তারা শিগগিরই বিশদ জানাবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

ফাতাহ ও হামাসের প্রতিনিধিরা গত মঙ্গলবার কায়রোয় মিলিত হয়ে হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজা স্ট্রিপকে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণে আনার ব্যাপারে আলাপ-আলোচনা শুরু করেন। প্যালেস্টিনিয়ান অথরিটি বা পিএ ফাতাহ-র সঙ্গে জড়িত। মিশরের মধ্যস্থতায় দু'পক্ষের বৈঠক সম্ভব হয়।

২০০৬ সালের নির্বাচনে হামাসের বিপুল জয়ের পর দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়, যার ফলে একটি দুর্বল জোট সরকার ভেঙে যায়। তখন থেকে হামাস গাজা স্ট্রিপে ও ফাতাহ পশ্চিম তীরে শাসন চালিয়ে আসছে।

কায়রোর আলাপ-আলোচনায় সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি এএফপি সংবাদ সংস্থাকে জানান যে, বৃহস্পতিবারের আপোশের ফলে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ গাজা ও মিশরের মধ্যে একাধিক সীমান্ত পারাপার কেন্দ্রের দায়িত্ব নেবে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন ইসলামপন্থী হামাস দলকে একটি সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী বলে বিবেচনা করে। গত সেপ্টেম্বরে হামাস গাজায় বিশেষ বিশেষ ক্ষমতা প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের ফাতাহ-সমর্থিত সরকারের হাতে তুলে দেবার সিদ্ধান্ত নেয়।

দু'পক্ষের মধ্যে ক্ষমতা বণ্টনের ভিত্তিতে একটি ঐক্যের সরকার সৃষ্টির উদ্দেশ্যে মিশর অতীতে একাধিকবার ফাতাহ ও হামাসের মধ্যে মধ্যস্থতায় সাহায্য করেছে। ২০১৪ সালে ফাতাহ ও হামাস একটি জাতীয় সম্প্রীতির সরকার গঠন সম্পর্কে একমত হয়, কিন্তু এই চুক্তি সত্ত্বেও হামাসের অদৃশ্য সরকার গাজা স্ট্রিপে শাসন চালিয়ে যায়।

(জাস্ট নিউজ/ডেস্ক/একে/১৯২৬ঘ.)

মতামত দিন
বহিঃবিশ্ব :: আরও খবর
প্রচ্ছদ
ছবি গ্যালারী
যোগাযোগ