Sunday October 22, 2017
আই টি
22 June 2017, Thursday
প্রিন্ট করুন
মহাকাশে বসবাসের আশা জাগালেন স্টিফেন হকিং
জাস্ট নিউজ -
ঢাকা, ২২ জুন (জাস্ট নিউজ) : আগামী ২০০ থেকে ৫০০ বছরের মধ্যে মানুষকে মহাকাশের নতুন ঠিকানায় বসবাসের প্রস্তুতি নেওয়া উচিত বলে মনে করেন প্রখ্যাত পদার্থবিদ স্টিফেন হকিং। গত মঙ্গলবার স্টারমাস উৎসবে দেওয়া এক বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, মানুষকে এই পৃথিবী ছেড়ে যাওয়া প্রয়োজন। আবার চাঁদে যাওয়া প্রয়োজন।

দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, নরওয়ের এই উৎসবে একটি ভিডিও বার্তায় বক্তৃতা দেন স্টিফেন হকিং। তার বক্তৃতায় ছিল দুটি অংশ। একটি অংশে স্টিফেন শোনান বৈজ্ঞানিক আশাবাদের কথা।

স্টিফেন হকিং বলেন, ‘আমাদের হাতে থাকা সময় দ্রুত শেষ হয়ে যাচ্ছে। অন্য পৃথিবী খুঁজে নিতে হবে আমাদের। নতুন সৌরজগৎ খুঁজতে হবে। মহাকাশে ছড়িয়ে পড়াটাই হবে একমাত্র সমাধান। আমি নিশ্চিত যে মানুষের পৃথিবী ছাড়া প্রয়োজন।’

হকিংয়ের পরিকল্পনা বেশ স্পষ্ট। তিনি চান, আগামী ৩০ বছরের মধ্যে যেন বিশ্বের দেশগুলো সম্মিলিতভাবে চাঁদে একটি উপনিবেশ তৈরির কাজ শেষ করে। হকিং বলেন, মানুষ আগামী ১৫ বছরের মধ্যে মঙ্গল গ্রহে পৌঁছাতে পারে। এর কয়েক দশক পর সেখানে ঘাঁটি তৈরি করা যাবে।

অবশ্য ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি গত বছর বলেছিল, চাঁদে একটি আবাসব্যবস্থা গড়ে তুলতে ২০ বছর সময় লাগবে। অন্যদিকে মঙ্গল গ্রহে মানুষ পাঠানোর দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছে নাসা। এই শতাব্দীর ত্রিশের দশকে এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে চায় যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থাটি।

মঙ্গলবার দেওয়া ভাষণে স্টিফেন হকিং আরো বলেন, ‘পৃথিবী নানা ক্ষেত্রে হুমকির মুখে আছে। এগুলোর কারণে বেশি ইতিবাচক হতে পারছি না আমি।’ হুমকি হিসেবে একদিকে উড়ে আসা গ্রহাণুর আঘাতের সম্ভাবনা যেমন তিনি বলছেন, তেমনি বাদ দিচ্ছেন না বৈশ্বিক উষ্ণতা, হিমবাহের গলে যাওয়া ও প্রাণিজগতের বিলুপ্তির মতো বিষয়ও।

হকিং বলেন, ‘পৃথিবী আমাদের জন্য ধীরে ধীরে ছোট হয়ে আসছে। একজন ব্যক্তি (প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প) জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে সবচেয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মানবতার ভবিষ্যৎ এবং এ বিষয়ে দীর্ঘমেয়াদি কৌশল অর্জনের জন্য আমি তর্ক করছি।’

একটি ভিন্ন প্রজাতি হিসেবে মানুষ প্রায় ২০ লাখ বছর ধরে টিকে রয়েছে। সভ্যতা শুরু হয়েছে প্রায় ১০ হাজার বছর আগে। স্টিফেন হকিং বলেন, ‘ক্রমশই আমাদের উন্নতি হচ্ছে। যদি মানুষ আরও ১০ লাখ বছর টিকে থাকতে চায়, তবে আমাদের সেখানে যেতে হবে, যেখানে এখনো কেউ যায়নি। সেটিই আমাদের ভবিষ্যৎ।’

(জাস্ট নিউজ/ডেস্ক/একে/২৩১০ঘ.)

মতামত দিন
আই টি :: আরও খবর
প্রচ্ছদ
ছবি গ্যালারী
যোগাযোগ