Sunday May 28, 2017
রাজনীতি
17 May 2017, Wednesday
প্রিন্ট করুন
নির্দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন হতে হবে : মির্জা আলমগীর
জাস্ট নিউজ -
ঢাকা, ১৭ মে (জাস্ট নিউজ) : নির্দলীয় সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কারণ দেশে এখনো নিরপেক্ষ নির্বাচন করার জন্য দলীয় সরকারের মানসিকতা তৈরি হয়নি বলে মনে করেন তিনি। তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বারবার বলে আসছেন আসুন আমরা আলোচনা করি। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করি।

বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ লেবার পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা আবদুল মতিনের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আধিপত্যবাদ বিরোধী সংগ্রামে মাওলানা মতিনের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা আলমগীর বলেন, ১৯৯৬ সালে নিরপেক্ষ সরকারের কথা তো আপনারাই বলেছিলেন। কিন্ত কেন আপনারা এখন এমনটা (দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন) বলছেন। দেশে এখনো নিরপেক্ষ নির্বাচন করার জন্য দলীয় সরকারের মানসিকতা তৈরি হয়নি। এজন্য নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অবশ্যই দিতে হবে। এই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হতে হবে।

তিনি বলেন, ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিয়েছে। সবাই জানে কী ভয়াবহ অবস্থা ছিল তখন। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বর্তমানে এমন একটি পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছি। প্রতিরোধে সোচ্চার হয়ে আমরা এখন রাজপথে সেভাবে নামতে পারি না। আমাদেরকে রাজপথে নেমে আসতে হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন ঘোষিত ভিশন ২০৩০ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে মির্জা আলমগীর বলেন, ভিশন হচ্ছে একটা স্বপ্ন, একটা প্রস্তাব। এ নিয়ে আলোচনা হতে হবে। সংযোজন-বিয়োজন হতে পারে। এবং কোনো বিষয় বাদ দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু সেদিকে না গিয়ে আওয়ামী লীগ সরাসরি বাতিল করেছে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ কু-তর্ক করছে।

দেশের প্রবৃদ্ধি নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আজকে মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। দেশে উন্নয়নের লহড়ী বয়ে যাচ্ছে। কী উন্নয়নের লহড়ী বয়ে যাচ্ছে? আওয়ামী লীগ বলছে, চলতি অর্থ বছরে উন্নয়নের প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়াবে ৭.২। কিন্তু এখানকার অর্থনীতিবিদরা, ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের অর্থনীতিবিদরা সবাই বলছে এটা অসম্ভব। তাহলে এই মানুষের সাথে প্রতারণা করা, মিথ্যে বুঝিয়ে জনগণের সাথে প্রতারণা করছে। এটা আওয়ামী লীগই পারে। জনগণকে বোকা বানিয়ে ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী করতে চায় আওয়ামী লীগ।

ভারতের সাথে সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে মির্জা আলমগীর বলেন, আমরা ভারতের কাছে আমাদের অভিন্ন ৫৪ নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা চাই। তার মানে এই নয় আমরা ভারত বিরোধী। আমরা ভারত বিরোধী নয়। প্রশ্নই ওঠেনা ভারত বিরোধীর। ভাতর আমাদের থেকে অনেক বড় দেশ। কিন্তু আমরাও একটি স্বাধীন দেশ, আমাদের ন্যায্য অধিকার গুলো আমরা চাই।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ডা: মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্ত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরাদ, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান এম এম হামিদুল্লাহ প্রমুখ।

(জাস্ট নিউজ/ওটি/১৫৪০ঘ.)
মতামত দিন
রাজনীতি :: আরও খবর
প্রচ্ছদ
ছবি গ্যালারী
যোগাযোগ